চুলকে ভালো রাখার উপায়

10

দিনদর্পণ : বয়সের সঙ্গে সঙ্গে একাধিক লোক চুল পড়ার সমস্যায় ভোগেন। চুলের উজ্জ্বলতা ক্রমশ হ্রাস পায়। অনেক প্রোডাক্ট ব্যবহারের পরেও ভালো ফল মেলে না। আপনিও কি সেই একই সমস্যায় ভুগছেন! দীর্ঘিদন নামী- দামী প্রোডাক্ট ব্যবহারে কোনো ফল পাচ্ছেন না! তাহলে এই সমস্যা থেকে মুক্তি পাওয়ার কিছু সহজ উপায় জেনে নিন। কিছু ঘরোয়া পদ্ধতির দ্বারা আপনি পেয়ে যেতে পারেন উজ্জ্বল, ঘন চুল।

 তাহলে জেনে নেওয়া যাক সেই সমস্ত উপায়,

১) রুক্ষ শুষ্ক চুলের জন্য হেয়ার মাস্ক : প্রথমে একটি বাটিতে নিয়ে নিন দু-চামচ আমলা পাউডার, মেথি , রিঠা, সিকাকাই এবং ত্রিফলা। তারপর তার সঙ্গে দুটো ডিম এবং টক দই মিশিয়ে ভালো করে ফেঁটিয়ে একটি মিশ্রন তৈরি করে নিন। তারপর সেই মিশ্রনটি চুলের গোঁড়া থেকে আগা পর্যন্ত ভালো করে লাগিয়ে নিন। তারপর মিশ্রনটি চুলে লাগানো অবস্থায় ৪৫ মিনিট রেখে কোনো ভালো মাইল্ড শ্যাম্পু দিয়ে চুল ধুয়ে নিন। তারপর কন্ডিশনার লাগিয়ে নিন ভালো করে। পরপর ১৫ দিন একই উপায় অবলম্বন করুন।

২) হেয়ার স্প্রে : প্রথমে দু-টো পাতিলেবু স্লাইশ করে কেটে নিন। তারপর স্লাইশ করা টুকরোগুলো দু-কাপ জলের সঙ্গে খুব ভালো করে ফোটাতে হবে। যতক্ষন না পর্যন্ত সেটা ফুটে অর্ধেক হয়ে যায়। তারপর সেই তরলটি একটি স্প্রে বোতলে ভরে রেখে দিন। প্রয়োজনে সেটি স্প্রে হিসেবে ব্যবহার করুন।

৩) কোঁকড়ানো চুলের জন্য হেয়ার মাস্ক : এক গ্লাস দুধের সঙ্গে এক চামচ মধু ভালো করে মিশিয়ে নিন। তারপর সেই মিশ্রনটি ভালো করে চুলে লাগিয়ে নিন। মধু এমন একটা প্রাকৃতিক জিনিস যা চুলকে মসৃন করে, আর দুধে আছে চুল নরম করার ক্ষমতা৷

  এছাড়াও সপ্তায় এক দিন তেল ব্যবহার করুন। এবং চুলের স্টিমিংয়ের জন্য গরম জলে টাওয়াল ভিজিয়ে চুলে ১০ মিনিটের জন্য জড়িয়ে রাখুন। আর হেয়ার ড্রায়ারের ব্যবহার এড়িয়ে চলাই ভালো।